মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কার্যবিবরণী ও গুরুত্বপূর্ন সিদ্ধান্ত

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার ।

 

জুন/২০১3 খ্রিঃ উপজেলা চোরাচালান নিরোধ কমিটির  সভার কার্যবিবরণী

 

সভাপতিঃ           মোহাম্মদ নাজমুল হাসান

                        উপজেলা নির্বাহী অফিসার

                        কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

 

স্থান       ঃ        উপজেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষ।

 

তারিখ   ঃ        ০৫ আগস্ট, ২০১৫ খ্রিঃ।  

 

সময়      ঃ        সকাল ১০.০০ ঘটিকা ।

 

উপস্থিত সদস্যবৃন্দঃ পরিশিষ্ট ‘‘ক’’স্বাক্ষরের ক্রমানুসারে বর্ণিত

সভাপতি উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু করেন। অতঃপর বিস্তারিত আলাপ আলোচনার পর নিম্ন বর্ণিত সিদ্ধান্ত সমূহ গৃহীত হয়। 

০১। বিগত সভার কার্যবিবরণী পাঠ ও অনুমোদনঃ

বিগত সভার কার্যবিবরণী সভায় উপস্থাপন করা হয় এবং বিস্তারিত আলোচনান্তে কোনরূপ সংশোধনী না থাকায় তা সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয়।

০২। ইউনিয়ন পর্যায়ে চোরাচালান নিরোধ টাস্কফোর্স সভা অনুষ্ঠানঃ

সীমান্তবর্তী ইউনিয়ন পরিষদ সমূহ হতে প্রতি মাসে চোরাচালান নিরোধ টাস্কফোর্স কমিটির সভা আহবান করে সভার কার্যবিবরণী পরবর্তী মাসের ০৩(তিন) তারিখের মধ্যে প্রেরণ নিশ্চিত করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউ/পি চেয়ারম্যানগণকে বারংবার অনুরোধ করা হলেও সীমান্তবর্তী ইউনিয়ন কর্মধা ও শরীফপুর ইউপি চেয়ারম্যানগণ কার্যবিবরণী প্রেরণ করছেন না। শুধুমাত্র পৃথিমপাশা ইউনিয়নের চোরাচালান সংক্রামত্ম সভার কার্যবিবরণী পাওয়া গিয়েছে।

সিদ্ধান্তঃ  নিয়মিত মাসিক চোরাচালান নিরোধ টাস্কফোর্স কমিটির সভা আহবান করে সভার কার্যবিবরণী পরবর্তী মাসের ০৩ (তিন) তারিখের মধ্যে আবশ্যিকভাবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কুলাউড়াসহ সংশ্লিষ্ট সকল দপ্তরে প্রেরণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানগণকে পুনরায় অনুরোধ করা হয়।

০৩। সীমান্তে চোরাচালানঃ

এ বিভাগের কার্যক্রম নিয়ে সভায় আলোচনা হয়। বিগত মাসে সীজার তালিকা প্রাপ্ত মতে ১। শরীফপুর বিওপি ১২,০৯০/- টাকার ভারতীয় হুইস্কিসহ দুইজন আসামীকে ধৃত করেছেন। ২। মুরইছড়া বিওপি ২৭,৩৮৫/- টাকার ৩২.৮৯ ঘনফুট দেশী বনাক/ভিসি কাঠ আটক করেছেন। ৩। চাতলাপুর বিওপি ৫৫০০/- টাকার ভারতীয় মদ আটক করেছেন। ৪। আলীনগর বিওপি ৩০০০/- টাকার ভারতীয় মদসহ ১জন আসামীকে ধৃত করেছেন। কোম্পানী কমান্ডার, চাতলাপুর বিওপি সভাকে জানান যে, সীমান্ত এলাকায় অবৈধ মালামাল আটক অভিযান অব্যাহত রাখার ফলে সীমান্তে চোরাচালান অনেকাংশে কমে এসেছে। নিয়মিত টহলের মাধ্যমে এসব চোরাচালান আটক অভিযান পরিচালনার জন্য সভাপতি কোম্পানী কমান্ডার, চাতলাপুর বিওপি-কে ধন্যবাদ জানান।

 

সিদ্ধান্তঃ নিয়মিত টহলের মাধ্যমে সীমান্তে চোরাচালান প্রতিরোধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কোম্পানী কমান্ডার, চাতলাপুর বিওপি-কে অনুরোধ করা হয়।

 

০৪। মাদকদ্রব্য সংক্রান্তঃ মাদকদ্রব্য ব্যবহার ও পাচারকারীদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হচ্ছে মর্মে উপজেলা নির্বাহী অফিসার সভাকে অবহিত করেন। হলিছড়া বাগানের একমাত্র লাইসেন্সধারী মদের পাট্টাটির কারণে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটলে পাট্টাটি বাগানের ভেতরে স্থানামত্মরের প্রসত্মাব প্রেরণ করার জন্য চেয়ারম্যান, ব্রাহ্মন বাজার ইউপি-কে অনুরোধ করা হয়। চেয়ারম্যান, ভহকশিমইল ইউপি জানান,  ফেন্সিডিলসহ উন্নতমানের ভারতীয় মদ নদীতে বসত্মাবন্দী করে পাচার করা হচ্ছে মর্মে সভাকে অবহিত করেন। এ ব্যাপারে সতর্ক দৃষ্টি রাখার জন্য বর্ডার গার্ড কর্তৃপক্ষকে সভার মাধ্যমে অনুরোধ জানান। কোম্পানী কমান্ডার, চাতলাপুর বিওপি জানান, আলীনগর সিরাজ মিয়া নামক এক ব্যক্তিকে ২ বোতল মদসহ আটকক্রমে চালান করা হয়েছে মর্মে সভাকে অবহিত করেন।

সিদ্ধান্ত    ঃ        মাদকদ্রব্যের উৎপাদন, ব্যবহার ও প্রসার রোধে নিবিড় তদারকিসহ প্রয়োজনে যৌথ অভিযান পরিচালনা করার সিদ্ধামত্ম গৃহিত হয়।

 

০৫। চোরচালান নিরোধ সংক্রান্ত টাস্কফোর্সকে কার্যকর করার প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে।

 

অতঃপর আর কোন আলোচ্য বিষয় না থাকায় সভাপতি উপস্থিত সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

 

স্বাক্ষরিত

(মোহাম্মদ নাজমুল হাসান)

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

 

স্মারক নং সাঃনথি/২০০৪-০৫/         (২০)                                                       তারিখঃ-        /০৭/২০১৩ খ্রিঃ।

 

বিতরণঃ            

০১। জেলা প্রশাসক, মৌলভীবাজার । সদয় অবগতির জন্য ।

০২। চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, কুলাউড়া ।

অবগতি ও কার্যার্থেঃ

০৩। উপজেলা ..................................কর্মকর্তা, কুলাউড়া ।

০৪। চেয়ারম্যান .................................. ইউ/পি, কুলাউড়া ।

০৫। অফিসার ইনচার্জ, কুলাউড়া থানা।

০৬। জনাব...................................................।

 

 

     উপজেলা নির্বাহী অফিসার

      কুলাউড়া, মৌলভীবাজার


গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

জুন/২০১৩ খ্রিঃ মাসের উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভার কার্যবিবরণী

 

সভাপতি             ঃ    মোহাম্মদ নাজমুল হাসান

                             উপজেলা নির্বাহী অফিসার

                             কুলাউড়া, মৌলভীবাজার। 

 

স্থান                 ঃ    উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষ।

তারিখ               ঃ    ০৫  আগস্ট ২০১৫ খ্রিঃ ।

সময়                ঃ    সকাল  ১০-৩০ মিঃ।

 

উপস্থিত সদস্যবৃন্দঃ পরিশিষ্ট ‘‘ক’’ তে স্বাক্ষরের ক্রমানুসারে ব©র্র্ণত।

 

            সভাপতি উপস্থিত সকলকে স্বাগত জানিয়ে সভার কার্যক্রম শুরু করেন। অতঃপর উপস্থিত সদস্যবৃন্দকে উপজেলার সামগ্রিক আইন-শৃংখলা বিষয়ে এজেন্ডাভিত্তিক আলোচনা করার আহবান জানান। বিস্তারিত আলোচনার পর নিম্ন বর্ণিত সিদ্ধান্ত সমূহ গৃহীত হয়।

 

বিগত সভার  কার্যবিবরণী পাঠ ও অনুমোদন ঃ

বিগত ২৪/০৪/২০১২ খ্রিঃ তারিখে অনুষ্ঠিত উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভার কার্যবিবরণী সভায় উপস্থাপন করা হয় এবং কার্যবিবরণীতে অন্য কোন সংশোধনী না থাকায় তা পাঠান্তে অনুমোদিত হয়।        

ক্র

আলোচনা

সিদ্ধান্ত

বাস্তবায়নে

1.     

রেলওয়ে সার্ভিসের সাথে সর্ম্পৃক্ত ৩জন কর্মচারী রেলওয়ে এলাকায় শূকর পালন করছেন। শূকর পালন করে তারা জীবিকা নির্বাহ করছেন। এসব শূকর খোলামেলাভাবে পালনের ফলে এলাকার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার, কুলাউড়া সভাকে জানান বন্যপ্রানীকে গৃহপালিত পশু হিসেবে পালানের কোন বিধান নেই। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রেঞ্জ, বন কর্মকর্তাকে অনুরোধ করেন।

বন্যপ্রাণী গৃহপালিত পশু হিসেবে পালন করার কোন বিধান না থাকায় অবিলম্বে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য রেঞ্জ, বন কর্মকর্তা নিশ্চিত করবেন।

রেঞ্জ বনকর্মকর্তা, কুলাউড়া

2.    

চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ও চেয়ারম্যান, ভাটেরা ইউপি জানান, তাঁর ইউনিয়নে ভাটেরা রাবার বাগান রয়েছে। বিগত বছরগুলোতে উক্ত বাগানের অধিকাংশ গাছ চুরি হয়ে গিয়েছে। এসব গাছ চুরি প্রতিরোধ করা না গেলে অচিরে এ সরকারী বাগানটি ধ্বংস হয়ে যাবে। তিনি এ সরকারী বাগানটি রক্ষাবেক্ষণে নিয়োজিত টহলরত আনসার বাহিনীর সদস্যদের কর্তব্য অবহেলাকে দায়ী করেন। রাবার চুরি নিয়ে সৃষ্ট মামলায় অনেক সময় দেখা গেছে নিরাপরাধ ব্যক্তিদের জড়ানো হয়েছে। প্রকৃতভাবে যারা রাবার চুরির সাথে জড়িত রয়েছে তারা কোন না কোন ভাবে পার পেয়ে যাচ্ছেন।

চেয়ারম্যান, ভূকশিমইল ইউপি জানান কামাল নামীয় এক ব্যক্তির রাবার বাগান হতে মাসিক উৎপাদন ২০ কেজি এর বেশী হওয়ার কথা না থাকলেও বর্ণিত ব্যক্তি প্রতিমাসে ১০০০ কেজি থেকে ১৫০০ কেজি রাবার বিক্রয় করে থাকেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার উক্ত রাবার বাগান পরিদর্শনে যাবেন মর্মে সভাকে অবহিত করেন এবং এ বিষয়ে ম্যানেজার, ভাটেরা রাবার বাগান যোগাযোগ করবেন।

ভাটেরা রাবার চুরির বিষয়ে তদন্তক্রমে আইনানুগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার/ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কুলাউড়া থানা/ম্যানেজার, ভাটেরা রাবার বাগান/সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান

3.   

 চোরাচালান/মাদকদ্রব্যঃ 

চেয়ারম্যান বরমচাল ইউপি সভাকে অবহিত করেন যে, বরমচাল চা বাগান এলাকায় অবৈধভাবে চুলাই মদ তৈরী হচ্ছে। এসব নিম্নমানের চুলাই মদ পান করে বহিরাগত/স্থানীয় বখাটেরা হাটে বাজারে মাতলামী করে থাকে। উক্ত এলাকায় অবৈধভাবে মদ উৎপাদনকারীদের বিরুদ্ধে চলতি অর্থ বছরে কোন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে তিনি সর্বাত্মক সহযোগীতা করবেন মর্মেও সভাকে জানান। তাছাড়াও তিনি জানান যে, বহিরাগত মাদকসেবীরা আসে এবং উৎকোচ ঝামেলার সৃষ্টি করে থাকে এমনকি তিনি নিজেও মাদকসেবীদের হামলার শিকার হয়েছেন মর্মেও উল্লেখ করেন। তিনি (চেয়ারম্যান) সভাকে আরো অবহিত করেন যে, বরমচাল ষ্টেশনটি ফন্সিডিল ব্যবসার অন্যতম স্থান হিসেবে পরিচালিত হয়েছে বলা যায়। চেয়ারম্যান, ব্রাহ্মণবাজার ইউপি, সভাকে অবহিত করেন যে, ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের হলিছড়া বাগানে একটি মাত্র লাইসেন্সধারী মদের পাট্টা রয়েছে যা ব্রাহ্মণবাজার বস্তি এলাকায় অবস্থিত। ফলে উক্ত পাট্টায় মদ খেতে বিভিন্ন এলাকা থেকে সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকজন আসে এবং বিভিন্ন ধরনের অপরাধ ঘটিয়ে পালিয়ে যায়। তিনি আরোও জানান, হিঙ্গাজিয়া চা বাগান এলাকায় কোন লাইসেন্সধারী মদের পাট্টা নেই কিন্তু স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত চুলাই মদ সন্ধ্যা ৭.০০ ঘটিকার পর বাগানের   রাস্তার পাশে সারিবদ্ধভাবে চেয়ার-টেবিল বসিয়ে এমনকি দোকান ঘরে অবাধে মদ ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে এবং মাদকাসক্তরা বিভিন্ন অসমাজিক কার্যকলাপে লিপ্ত হচ্ছে। এ ব্যাপারে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। চেয়ারম্যান, ভূকশিমইল ইউপি জানান, রবিরবাজার এলাকাটি মাদকসেবীদের স্বর্গরাজ্য। জরুরী ভিত্তিতে উক্ত এলাকায় অভিযান পরিচালনা করা না হলে উত্তরোত্তর মাদকাসক্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকবে।

মাদকদ্রব্যের উৎপাদন, ব্যবহার ও প্রসার রোধে নিবিড় তদারকিসহ প্রয়োজনে যৌথ অভিযান পরিচালনা করতে হবে এবং আগামী ১০ দিনের মধ্যে রিপোর্ট দাখিল করার জন্য মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অফিসার, কুলাউড়াকে বলা হয়।

 

উপজেলা নির্বাহী অফিসার/উপজেলা মাদকদ্রব নিয়ন্ত্রন অফিসার

4.     

বিবিধঃ চেয়ারম্যান, টিলাগাঁও, তাঁর ইউনিয়নে লংলা খাস এলাকায় খাস জমি বন্দোবস্ত প্রদানের বিষয়ে তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সভার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। উক্ত খাস এলাকায় বহিরাগত লোকজন যেমন, রাজসনগরসহ অন্যান্য এলাকার লোকজন এসে বসবাস করে থাকেন এবং সেখানে অযথা ঝামেলা সৃষ্টি করে থাকেন। তিনি আরোও জানান, নতুন করে বন্দোবস্ত প্রদান বন্ধ রেখে যাচাই বাছাইক্রমে বন্দোবস্ত প্রদানের জন্য সভারে দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার (ভারপ্রাপ্ত) জানান, লংলা খাস এলাকায় একজন মুক্তিযোদ্ধা দীর্ঘ ২০/৩০ বৎসর যাবত বসবাস করে আসছেন। প্রায়ই তাদের উক্ত করা হয়। এ বিষয়ে তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সভার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জানান, টিলাগাঁও ইউনিয়নের আশ্রয়গ্রামে জনৈক ব্যক্তি পুরাতন মনুনদীতে বাঁধ দিয়ে এলাকার পানি সিষ্কাশন বন্ধ করে রেখেছেন এবং তার নিজ বাড়ীটিকে দূর্গের মতো তৈরী করে রেখেছেন। সেখানে যাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিপন্থি কোন কার্যকলাপ পরিচচালনা হচ্ছে কিনা হচ্ছে এ বিষয়ে নজর রাখার জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কুলাউড়া থানাকে অনুরোধ করা হয় এবং পানি নিষ্কাশনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য চেয়ারম্যান, টিলাগাঁও ইউপিকে অনুরোধ করা হয়।

ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কুলাউড়া থানা, রবিরবাজার এলাকায় মাদকদ্রব্যের ছড়াছড়ি রয়েছে মর্মে সভাকে অবহিত করেন। রেলওয়ে বিভাগের তেল চুরি করতে গিয়ে সংশ্লিষ্ট বিভাগের ২(দুই) জন কর্মচারীসহ তেল খদ্দেরকেও হাতে-নাতে ধরা হয়েছে। তাছাড়াও রেলওয়ে বিভাগের একজন কর্মচারীর পকেট থেকে গাঁাজা উদ্ধার করা হয়েছে এবং তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে মর্মেও উল্লেখ করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মহোদয়ের বাসার বাউন্ডারীর ভিতরে ফেন্সিডিল এর বোতল পাওয়ার বিষয়টি লজ্জাকর। লংলা থেকে বিছু মাদক পাওয়া গেছে মর্মে সভাকে অবহিত করেন। মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ও ঘৃনিত অপরাধ নিয়ন্ত্রণের জন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। রাবার চুরির বিষয়ে তদন্তক্রমে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং নির্দোষ লোকদের এ বিষয়ে জাড়ানো হবে না মর্মেও সভাকে আশ্বস্ত করেন এবং এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়াম্যানগণদের গোপনে সংবাদ দেয়ার জন্য অনুরোধ করেন।

মাদকদ্রব্য পাচার, সেবন ও রাবার চুরির বিষয়ে তদন্তক্রমে আইনানুগ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ নিশ্চিত করবেন।

 

টিলাগাঁও ইউনিয়নের আশ্রয়গ্রামে জনৈক ব্যক্তি পুরাতন মনুনদীতে বাঁধ দিয়ে এলাকার পানি সিষ্কাশন বন্ধ করে রেখেছেন এবং তার নিজ বাড়ীটিকে দূর্গের মতো তৈরী করে রেখেছেন। সেখানে যাতে আইন-শৃঙ্খলা পরিপন্থি কার্যকলাপ যাতে না ঘটে বিষয়টি তদন্তক্রমে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, কুলাউড়া থানাকে দায়িত্ব প্রদান করা হয় এবং পানি নিষ্কাশনের বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য চেয়ারম্যান, টিলাগাঁও ইউপি অনুরোধ করা হলো।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার/অফিসার ইনচার্জ, কুলাউড়া থানা/চেয়ারম্যান, টিলাগাঁও ইউপি।

 

অতঃপর আর কোন আলোচ্য বিষয় না থাকায় সভাপতি সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

 

 

স্বাক্ষরিত/-

(মোহাম্মদ নাজমুল হাসান)

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।

 


স্মারক নং-সাঃ ১৪/২০০৪-০৭/           (৪০)                                        তারিখঃ-      /০৭/২০১৩ খ্রিঃ।

 

অনুলিপি ঃ সদয় অবগতির জন্য ।

০১। জেলা প্রশাসক, মৌলভীবাজার।

০২। অধিনায়ক, ৩০ রাইফেল্স, ব্যাটালিয়ন, আখালিয়া, সিলেট।

০৩। পুলিশ সুপার, মৌলভীবাজার।

০৪। চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, কুলাউড়া।

০৫। ভাইস চেয়ারম্যান/মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ, কুলাউড়া।

       জ্ঞাতার্থে ও কার্যার্থেঃ

০৬। তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী, পানি উন্নয়ন বোর্ড, মৌলভীবাজার।

০৭। বিভাগীয় এস্টেট অফিসার, বাংলাদেশ রেলওয়ে চট্টগ্রাম।

০৮। বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, সিলেট।

০৯। মেয়র, কুলাউড়া পৌরসভা।

১০। সহকারী কমিশনার (ভূমি), কুলাউড়া।

১১। নির্বাহী প্রকৌশলী, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, কুলাউড়া

১২। উপজেলা...........................................কর্মকর্তা, কুলাউড়া।

১৩। অফিসার ইনচার্জ, কুলাউড়া থানা/জিআরপি থানা, কুলাউড়া রেলওয়ে।

১৪। অধ্যক্ষ/সুপার..................................কলেজ/মাদ্রাসা, কুলাউড়া।

১৫। চেয়ারম্যান ...............................(সকল) ইউ/পি, কুলাউড়া।

১৬। কমান্ডার, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, কুলাউড়া।

১৭। স্টেশন মাস্টার, কুলাউড়া রেলওয়ে জংশন, কুলাউড়া।

১৮। জনাব .........................................................।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার

কুলাউড়া, মৌলভীবাজার।